Back

ⓘ ইতিহাস - বাংলাদেশের সামরিক ইতিহাস, ইতিহাস, চলচ্চিত্র, একাডেমি, শ্রীলঙ্কার ইতিহাস, প্রাচীনকালের ইতিহাস, অভিযান, বনু আউস, আদি রাজত্ব, মিশর, আন্দীয় সভ্যতা ..



                                               

বাংলাদেশের সামরিক ইতিহাস

বাংলাদেশের সামরিক বাহিনীর ইতিহাস শুরু হয়েছিল ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময়। যা পরবর্তীতে বাংলাদেশকে স্বাধীনতার দিকে ধাবিত করে। বাংলাদেশের সামরিক বাহিনী অনেকাংশে সংগঠিত হয়েছে ১৯৪৭ সালের ব্রিটিশ ভারতীয় সামরিক বাহিনীর অবকাঠামোর উপর ভিত্তি করে। যা স্বাধীনতার পূর্ব পর্যন্ত পাকিস্তানি সামরিক বাহিনীর শোষণ এবং নির্যাতনের বিরুদ্ধে মুক্তি বাহিনী গেরিলা ফোর্স নামে কাজ করে।

                                               

ইতিহাস (চলচ্চিত্র)

ইতিহাস ২০০২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলাদেশী বাংলা ভাষার সামাজিক অ্যাকশনধর্মী চলচ্চিত্র। ছায়াছবিটি পরিচালনা করেছেন কাজী হায়াৎ। চলচ্চিত্রটির কাহিনী, চিত্রণাট্য ও সংলাপ লিখেছেন পরিচালক কাজী হায়াৎ নিজেই। এতে শ্রেষ্ঠাংশে অভিনয় করেছেন কাজী মারুফ, রত্না, মৌসুমী, কাজী হায়াৎ প্রমুখ। চলচ্চিত্রটি ২০০২ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে তিনটি শাখায় পুরস্কার অর্জন করে।

                                               

ইতিহাস একাডেমি

ইতিহাস একাডেমী বাংলাদেশের ইতিহাস গবেষকদের নিয়ে গঠিত একটি সংগঠন। ২০০১ সালে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় অনানুষ্ঠানিকভাবে সংঠগনটির উৎপত্তি হয়। ২০০৫ সালে এটি বাংলাদেশর সরকারের অনুমোদিত তালিকায় নিবন্ধিত হয় । এর সদর দফ্তর বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় অবস্থিত।

                                               

শ্রীলঙ্কার ইতিহাস

শ্রীলংকার ইতিহাস অখন্ড ভারত এবং এর আশেপাশের অঞ্চল এর ইতিহাসের সাথে জড়িত। লংকা দ্বীপে শ্রীলংকা আজ থেকে আনুমানিক ৩৮ হাজার বছর পূর্বের প্রাচীন মানব দেহাবশেষ বালানগোদা মানব এর অস্তিত্ব পাওয়া যায়। মহাবংশ, দ্বীপবংশ, চোলাবংশ এর পালি ইতিহাস অনুসারে তৃতীয় শতাব্দীর শুরুতে শ্রীলংকার ঐতিহাসিক কালের সুচনা হয়। তাঁদের বর্ণনা থেকে উত্তর ভারত থেকে সিংহলিদের আগমন এর ইতিহাস সম্পর্কে জনতে পারা যায়। দ্বীপে বসতি স্থাপনের প্রথম দিকের দলিল গুলি এই ইতিহাস গুলিতে পাওয়া যায়।খ্রিস্টপূর্ব ৬ষ্ঠ শতাব্দীতে সিংহলের প্রাচীনতম পূর্বপুরুষদের দ্বারা তাম্বাপানি রাজ্য প্রতিষ্ঠিত হয়। খ্রিস্টপূর্ব ৪র্থ শতাব্দীতে অনুরাধাপ ...

                                               

প্রাচীনকালের ইতিহাস

প্রাচীনকালের ইতিহাস হলো প্রাক ধ্রুপদী যুগ অথবা মানুষের ইতিহাসের শুরু থেকে প্রারম্ভিক মধ্যযুগ পর্যন্ত অতীতের ঘটনার নথিভূক্ত সমষ্টি। নথিভুক্ত ইতিহাসের ব্যাপ্তি খ্রিষ্টপূর্ব ৩,০০০ বছরের প্রাক-লিখন কালের তথ্যাবলী থেকে লেখার প্রাচীনতম আবিষ্কৃত অনুলিপি সুমেরীয় কিউনিফর্মসহ আনুমানিক ৫,০০০ বছরের।

                                               

অভিযান

অভিযান বলতে বোঝায় কোন তথ্য বা সংস্থান আবিষ্কারের উদ্দেশ্যে অনুসন্ধান করাকে। মানুষ সহ সকল প্রকার প্রাণীরা অভিযান করে থাকে। মানব ইতিহাসে, এর নাটকীয় উত্থান আবিষ্কারের যুগে ঘটেছিল যখন ইউরোপীয় অভিযাত্রীরা বিভিন্ন কারণে বিশ্বের বাকি অংশ যাত্রা করেছিলেন। সেই থেকে আবিষ্কারের যুগ পরবর্তী বড় অনুসন্ধানগুলি মূলত তথ্য অনুসন্ধানের উদ্দেশ্যেই ঘটেছিল।

                                               

বনু আউস

বনু আউস ৷এ গোত্রের বিখ্যাত একজন ব্যক্তির নাম ছিল আউস৷ তার নামে এ গোত্রটি বনু আউস নামে প্রসিদ্ধি পায়৷ বনু আউস মদিনার আরব গোত্রসমূহের মধ্যে প্রধান একটি গোত্র। মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ও তার সহচরগণ হিজরত করে মদীনা যাওয়াপর বনু আউস এবং বনু খাযরাজ তাদেরকে সর্বপ্রকার সাহায্য সহযোগীতা করেন৷ ফলে মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম খুশি হয়ে এ উভয় গোত্রকে আনসার উপাধিতে ভূষিত করেন৷ আনসার অর্থ সাহায্যকারীবৃন্দ। আউস ও খাযরাজ দুভাই ছিলেন৷ তাদের বাবার নাম হারেছা বিন ছালাবা৷ আর মায়ের নাম ক্বায়লাহ বিনতে কাহিল৷ মায়ের নামে এ দুগোত্র কে একত্রে বনু ক্বায়লাহ নামেও ডাকা হতো।

                                               

আদি রাজত্ব (মিশর)

মিশরের আদি রাজত্ব বলতে মিশরের ইতিহাসের প্রাচীনতম ঐতিহাসিক সময়কে সাধারণভাবে বোঝানো হয়ে থাকে। উত্তর ও দক্ষিণ মিশরের ঐক্যবদ্ধ হয়ে একটি একক রাজ্য গড়ে ওঠার সময়কালকে এর সূচনাপর্ব ধরা হয়ে থাকে ও তৃতীয় রাজবংশের তথা পুরাতন রাজত্বের সূচনা পর্যন্ত সাধারণভাবে এর ব্যাপ্তি ছিল বলে ধারণা করা হয়। মিশরের প্রথম ও দ্বিতীয় রাজবংশের রাজত্বকালকে এই যুগের অন্তর্ভুক্ত হিসেবে গণ্য করা হয়। এই সময়ের প্রথমদিকে মিশরের রাজধানী ছিল তিথনিস। পরবর্তীকালে প্রথম রাজবংশের আমলে তা মেমফিসে সরিয়ে আনা হয়।

                                               

আন্দীয় সভ্যতা

পৃথিবীর দীর্ঘতম পর্বতমালা হলো দক্ষিণ আমেরিকার আন্দিজ পর্বতমালা। এই পার্বত্য ভূভাগে পরস্পর সম্পর্কযুক্ত কয়েকটি প্রাচীন সভ্যতার উদ্ভব ঘটেছিল, যাদের মধ্যে কতগুলি হল অতি প্রাচীন। সম্মিলিতভাবে এসব সভ্যতাকেই মূলত আন্দীয় সভ্যতা বলা হয়ে থাকে। উত্তরে আজকের কলম্বিয়া থেকে দক্ষিণে আতাকামা মরুভূমি পর্যন্ত বিস্তৃত এক বিশাল ভূভাগে এই সভ্যতাগুলির বিকাশ ও বিস্তৃতির সাক্ষ্য পাওয়া যায়। বিশেষ করে আজকের পেরু ছিল এইসব প্রাচীন সভ্যতার বিকাশের কেন্দ্রভূমি। অবশ্য তার বাইরেও তিওয়ানাকু, প্রভৃতি কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সভ্যতার অস্তিত্বর কথাও আমরা জানতে পারি। ইনকা সাম্রাজ্য ছিল পেরুর স্পেনীয় বিজয়ের পূর্বে এই অঞ্ ...

                                               

আন্দীয় সভ্যতার সমুদ্রনির্ভরতা

আন্দীয় সভ্যতার সমুদ্রনির্ভরতা বিংশ শতাব্দীর শেষভাগে প্রত্নতত্ত্ববিদ ও ঐতিহাসিকদের মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে ওঠা একটি বিতর্কিত তত্ত্ব। এই তত্ত্বর মূল উপজীব্য বিষয় হল, দক্ষিণ আমেরিকার পেরুতে সুউচ্চ আন্দিজ পর্বতমালার পশ্চিমে প্রশান্ত মহাসাগরের উপকূল বরাবর যে সুপ্রাচীন সভ্যতার প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন আবিষ্কৃত হয়েছে, সেই সভ্যতার ভিত্তি পৃথিবীর অন্যান্য প্রান্তে গড়ে ওঠা সেই সময়ের অন্যান্য সুপ্রাচীন সভ্যতার মতো কৃষি ছিল না; বরং খাদ্যের জন্য এই সুপ্রাচীন সভ্যতার মানুষ মূলত সমুদ্রজাত নানা খাদ্যর উপর নির্ভর করতো। মধ্য পেরুর সমুদ্রোপকূলবর্তী বিভিন্ন প্রত্নতাত্ত্বিক খননস্থলে বিংশ শতাব্দীর বিভিন্ন সময়ে ...

Free and no ads
no need to download or install

Pino - logical board game which is based on tactics and strategy. In general this is a remix of chess, checkers and corners. The game develops imagination, concentration, teaches how to solve tasks, plan their own actions and of course to think logically. It does not matter how much pieces you have, the main thing is how they are placement!

online intellectual game →